ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

এবার ৬ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

Oplus_131072

ছয় ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৮ মে) এ নিষেধাজ্ঞা দেয় মার্কিন ট্রেজারি বিভাগ। আনাদোলু এজেন্সির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

আনাদোলু এজেন্সি জানিয়েছে, নিষেধাজ্ঞার আওতায় তিনটি সংস্থা ও তিন ব্যক্তি রয়েছেন। সাইবার অপরাধমূলক নেটওয়ার্কের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

 

 

মার্কিন ট্রেজারি বিভাগের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অভিযুক্ত ইয়ুন ওয়াং, জিনপিং লিউ এবং ইয়ান্নি জেং নাইনওয়ানওয়ান এস৫ নামে পরিচিত রেসিডেন্সিয়াল প্রক্সি পরিষেবার সাথে জড়িত। এটির সন্দেহভাজন ভাইরাস বটনেটের সঙ্গে সম্পৃক্ততা রয়েছে এবং এটি তাদের কার্যক্রমে ছড়িয়ে দিতে মনোনীত সংস্থা।

 

 

মার্কিন আন্ডার সেক্রেটারি নেলসন বলেন, এসব ব্যক্তি ব্যক্তিগত ডিভাইসের সঙ্গে আপস করার জন্য তাদের ভাইরাসযুক্ত বটনেট প্রযুক্তির ব্যবহার করেছে। তারা সাইবার অপরাধীদের প্রতারণামূলকভাবে অর্থনৈতিক সহায়তা ও নিরাপত্তা দিয়ে থাকে। এছাড়া তারা মার্কিন নাগরিকদের বোমার হুমকি দিয়ে আতঙ্কিত করেছে।

 

 

নিষেধাজ্ঞার আওতায় তিনটি কোম্পানি রয়েছে। এগুলো হলো- স্পাইসি কোড কোম্পানি লিমিটেড, টিউলিপ বিজ পাতায়া গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড এবং লিলি স্যুট কোম্পানি লিমিটেড। ওয়াংয়ের মালিকানাধীন বা তার সঙ্গে সংশ্লিষ্টার অভিযোগে এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, নাইনওয়ানওয়ান এস৫ বটনেট একটি ভাইরাসযুক্ত পরিষেবা যা ভিকটিম কম্পিউটারের সঙ্গে আপস করে। এরপর এটি সাইবার অপরাধীদের ইন্টারনেট সংযোগের প্রক্সির মাধ্যমে কম্পিউটারে ঢুকে পড়ে।

 

 

প্রায় দুই কোটি আইপি অ্যাড্রেসে প্রতারণা করেছে বটনেট। এসব আইপির মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের করোনাভাইরাসের সহায়তা, ত্রাণ এবং অর্থনৈতিক সুরক্ষাসহ বিভিন্ন বিষয়ের কয়েক হাজার প্রতারণামূলক অ্যাপ্লিকেশন দিয়েছে তারা। ফলে মার্কিন সরকারের কয়েক বিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া তারা কয়েক মিলিয়ন ক্রেডিট কার্ডের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে।

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্য ইমেইল

এবার ৬ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত : ১০:০৫:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

ছয় ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৮ মে) এ নিষেধাজ্ঞা দেয় মার্কিন ট্রেজারি বিভাগ। আনাদোলু এজেন্সির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

আনাদোলু এজেন্সি জানিয়েছে, নিষেধাজ্ঞার আওতায় তিনটি সংস্থা ও তিন ব্যক্তি রয়েছেন। সাইবার অপরাধমূলক নেটওয়ার্কের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

 

 

মার্কিন ট্রেজারি বিভাগের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অভিযুক্ত ইয়ুন ওয়াং, জিনপিং লিউ এবং ইয়ান্নি জেং নাইনওয়ানওয়ান এস৫ নামে পরিচিত রেসিডেন্সিয়াল প্রক্সি পরিষেবার সাথে জড়িত। এটির সন্দেহভাজন ভাইরাস বটনেটের সঙ্গে সম্পৃক্ততা রয়েছে এবং এটি তাদের কার্যক্রমে ছড়িয়ে দিতে মনোনীত সংস্থা।

 

 

মার্কিন আন্ডার সেক্রেটারি নেলসন বলেন, এসব ব্যক্তি ব্যক্তিগত ডিভাইসের সঙ্গে আপস করার জন্য তাদের ভাইরাসযুক্ত বটনেট প্রযুক্তির ব্যবহার করেছে। তারা সাইবার অপরাধীদের প্রতারণামূলকভাবে অর্থনৈতিক সহায়তা ও নিরাপত্তা দিয়ে থাকে। এছাড়া তারা মার্কিন নাগরিকদের বোমার হুমকি দিয়ে আতঙ্কিত করেছে।

 

 

নিষেধাজ্ঞার আওতায় তিনটি কোম্পানি রয়েছে। এগুলো হলো- স্পাইসি কোড কোম্পানি লিমিটেড, টিউলিপ বিজ পাতায়া গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড এবং লিলি স্যুট কোম্পানি লিমিটেড। ওয়াংয়ের মালিকানাধীন বা তার সঙ্গে সংশ্লিষ্টার অভিযোগে এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, নাইনওয়ানওয়ান এস৫ বটনেট একটি ভাইরাসযুক্ত পরিষেবা যা ভিকটিম কম্পিউটারের সঙ্গে আপস করে। এরপর এটি সাইবার অপরাধীদের ইন্টারনেট সংযোগের প্রক্সির মাধ্যমে কম্পিউটারে ঢুকে পড়ে।

 

 

প্রায় দুই কোটি আইপি অ্যাড্রেসে প্রতারণা করেছে বটনেট। এসব আইপির মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের করোনাভাইরাসের সহায়তা, ত্রাণ এবং অর্থনৈতিক সুরক্ষাসহ বিভিন্ন বিষয়ের কয়েক হাজার প্রতারণামূলক অ্যাপ্লিকেশন দিয়েছে তারা। ফলে মার্কিন সরকারের কয়েক বিলিয়ন ডলারের ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া তারা কয়েক মিলিয়ন ক্রেডিট কার্ডের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে।