ঢাকা , সোমবার, ২০ মে ২০২৪

বিশ্বকাপে সাইফউদ্দিনের জায়গা না পাওয়া নিয়ে যা বললেন শান্ত

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল ঘোষণা নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। সবথেকে বেশি আলোচনায় ছিল সাইফউদ্দিনকে না নেওয়ার বিষয়টি।

 

তাকে দলে না নেওয়ার ব্যাপারে অবশ্য গতকাল ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন প্রধান নির্বাচক। এবার তার ব্যাপারে মুখ খুললেন নাজমুল হাসান শান্তও।

 

 

বিশ্বকাপ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন টাইগার অধিনায়ক ও হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। সেখানে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল দল না পাওয়া সাইফউদ্দিন আনলাকি কি না?

 

এই প্রশ্নের জবাবে শান্ত বলেন, ‘সাইফউদ্দিন সাকিব দুজনই ক্লোজ ছিল। সম পরিমান ম্যাচ খেলেছে। এমন না যে ৮ উইকেট পেয়েছে, উইকেট পায়নি…এ কারণে’

 

 

সাইফউদ্দিনকে দলে না নেওয়ার ব্যাপারে এর আগে অবশ্য তানজিম হাসান সাকিবকে টেনেছেন প্রধান নির্বাচক গাজী আশরাফ হোসেন লিপু।

 

দলের প্রতি আস্থা ও নিবেদনের জায়গা থেকে সাইফউদ্দিনকে থেকে সাকিব এগিয়ে আছেন বলে জানান তিনি। যে কারণে ৩০ তারিখ আইসিসিতে পাঠানো দলের সাইফউদ্দিন থাকলেও পরবর্ততে বাদ পড়েন তিনি।

 

 

মঙ্গলবার দল ঘোষণার পর লিপু বলেন, ‘এখানে সবাই খুব ক্লোজ লড়াই করেছে। যে দলটা দিয়েছিলাম ৩০ তারিখে সেটা এক প্রেক্ষাপটে দিয়েছিলাম। সেখানে দুটো চিন্তা ছিল যে বর্তমান ক্রিকেটারদের নিয়েই দল করা। আর একটা চিন্তা ছিল ইনজুরি থেকে ফেরা ক্রিকেটাররা যেমন সাইফউদ্দিন কেমন করে তা দেখা। তো আমাদের যে আস্থার জায়গাটা, সেখানে সাইফউদ্দিনের চেয়ে তানজিম একটু এগিয়ে ছিল এজন্য তাকে আমরা দলে রেখেছি। ’

 

 

তানজিমকে শ্রীলঙ্কা সিরিজেও আমরা দেখেছি। তার একাগ্রতা, মাঠে নিজেকে নিংড়ে দেওয়ার চেষ্টা সেটা সাইফউদ্দিনের চেয়ে কিছুটা এগিয়ে রেখেছে। আমরা যে কারণে সাইফউদ্দিনের দিকে তাকিয়ে ছিলাম যে ডেথ ওভারে ইয়র্কার করা, সেটা ঘরোয়া ক্রিকেটে যেমন ছিল তার চেয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একটু ব্যতিক্রম মনে হয়েছে। তাই আমরা একটু ভিন্ন চিন্তা করেছি। ৩০ তারিখে যে দলটা দিয়েছিলাম সেখান থেকে একমাত্র এ জায়গাটাতেই পরিবর্তন হয়েছে। আমাদের আসলে সাইফউদ্দিন ও তানিজমের সঙ্গেই কনফিউশন চলছিল। ’

 

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৪ ম্যাচ খেলে ৮ উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তানজিম হাসান সাকিবও দুই ম্যাচে উইকেট পেয়েছেন কেবল একটি। সাইফউদ্দিন ওভারপ্রতি ৯.৩১ ইকোনমিতে রান দিয়েছেন, তানজিম দিয়েছেন ৮.৫০। তবে এসব পরিসংখ্যান বিবেচনায় নিতে চাননি প্রধান নির্বাচক।

 

 

তিনি বলেন, ‘ম্যাচ ও উইকেট দেখে কনক্লুশন টানা যায় না। আন্তর্জাতিকে কে কখন উইকেট পাচ্ছে তা দেখতে হবে। সাইফউদ্দিনকে যে জায়গায় দরকার হতো সেটা পরখ করে দেখেছি। শেষ দুটো ম্যাচে দুটো সিমার নিয়ে খেলেছি। সেখানে কোন কোন জায়গায় মনে হয়েছে যে সাইফউদ্দিনকে কিছু কিছু জায়গায় আমাদের আস্থার জায়গায় ওকে মিস করেছি। সে একজন জাতীয় ক্রিকেটার তার কমতি নিয়ে এত বলার কিছু নেই। ’

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্য ইমেইল

বিশ্বকাপে সাইফউদ্দিনের জায়গা না পাওয়া নিয়ে যা বললেন শান্ত

প্রকাশিত : ০৬:৩১:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল ঘোষণা নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। সবথেকে বেশি আলোচনায় ছিল সাইফউদ্দিনকে না নেওয়ার বিষয়টি।

 

তাকে দলে না নেওয়ার ব্যাপারে অবশ্য গতকাল ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন প্রধান নির্বাচক। এবার তার ব্যাপারে মুখ খুললেন নাজমুল হাসান শান্তও।

 

 

বিশ্বকাপ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন টাইগার অধিনায়ক ও হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। সেখানে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল দল না পাওয়া সাইফউদ্দিন আনলাকি কি না?

 

এই প্রশ্নের জবাবে শান্ত বলেন, ‘সাইফউদ্দিন সাকিব দুজনই ক্লোজ ছিল। সম পরিমান ম্যাচ খেলেছে। এমন না যে ৮ উইকেট পেয়েছে, উইকেট পায়নি…এ কারণে’

 

 

সাইফউদ্দিনকে দলে না নেওয়ার ব্যাপারে এর আগে অবশ্য তানজিম হাসান সাকিবকে টেনেছেন প্রধান নির্বাচক গাজী আশরাফ হোসেন লিপু।

 

দলের প্রতি আস্থা ও নিবেদনের জায়গা থেকে সাইফউদ্দিনকে থেকে সাকিব এগিয়ে আছেন বলে জানান তিনি। যে কারণে ৩০ তারিখ আইসিসিতে পাঠানো দলের সাইফউদ্দিন থাকলেও পরবর্ততে বাদ পড়েন তিনি।

 

 

মঙ্গলবার দল ঘোষণার পর লিপু বলেন, ‘এখানে সবাই খুব ক্লোজ লড়াই করেছে। যে দলটা দিয়েছিলাম ৩০ তারিখে সেটা এক প্রেক্ষাপটে দিয়েছিলাম। সেখানে দুটো চিন্তা ছিল যে বর্তমান ক্রিকেটারদের নিয়েই দল করা। আর একটা চিন্তা ছিল ইনজুরি থেকে ফেরা ক্রিকেটাররা যেমন সাইফউদ্দিন কেমন করে তা দেখা। তো আমাদের যে আস্থার জায়গাটা, সেখানে সাইফউদ্দিনের চেয়ে তানজিম একটু এগিয়ে ছিল এজন্য তাকে আমরা দলে রেখেছি। ’

 

 

তানজিমকে শ্রীলঙ্কা সিরিজেও আমরা দেখেছি। তার একাগ্রতা, মাঠে নিজেকে নিংড়ে দেওয়ার চেষ্টা সেটা সাইফউদ্দিনের চেয়ে কিছুটা এগিয়ে রেখেছে। আমরা যে কারণে সাইফউদ্দিনের দিকে তাকিয়ে ছিলাম যে ডেথ ওভারে ইয়র্কার করা, সেটা ঘরোয়া ক্রিকেটে যেমন ছিল তার চেয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একটু ব্যতিক্রম মনে হয়েছে। তাই আমরা একটু ভিন্ন চিন্তা করেছি। ৩০ তারিখে যে দলটা দিয়েছিলাম সেখান থেকে একমাত্র এ জায়গাটাতেই পরিবর্তন হয়েছে। আমাদের আসলে সাইফউদ্দিন ও তানিজমের সঙ্গেই কনফিউশন চলছিল। ’

 

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৪ ম্যাচ খেলে ৮ উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তানজিম হাসান সাকিবও দুই ম্যাচে উইকেট পেয়েছেন কেবল একটি। সাইফউদ্দিন ওভারপ্রতি ৯.৩১ ইকোনমিতে রান দিয়েছেন, তানজিম দিয়েছেন ৮.৫০। তবে এসব পরিসংখ্যান বিবেচনায় নিতে চাননি প্রধান নির্বাচক।

 

 

তিনি বলেন, ‘ম্যাচ ও উইকেট দেখে কনক্লুশন টানা যায় না। আন্তর্জাতিকে কে কখন উইকেট পাচ্ছে তা দেখতে হবে। সাইফউদ্দিনকে যে জায়গায় দরকার হতো সেটা পরখ করে দেখেছি। শেষ দুটো ম্যাচে দুটো সিমার নিয়ে খেলেছি। সেখানে কোন কোন জায়গায় মনে হয়েছে যে সাইফউদ্দিনকে কিছু কিছু জায়গায় আমাদের আস্থার জায়গায় ওকে মিস করেছি। সে একজন জাতীয় ক্রিকেটার তার কমতি নিয়ে এত বলার কিছু নেই। ’