ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪
ঘটনাস্থলে কোন প্রাণের চিহ্ন পাওয়া যায়নি

বেঁচে নেই ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী

Oplus_131072

ইরানে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান এবং আরও কয়েকজন নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির রাষ্ট্রীয় টিভি। প্রেস টিভির বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি। 

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আইআরএনএ- এর সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলগুলোতে ড্রোন থেকে নেওয়া দুর্ঘটনাস্থলের ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে। এতে প্রেসিডেন্ট রাইসির হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ দেখা গেছে।

দেশটির আধা-সরকারি বার্তা সংস্থা মেহর নিউজ বলছে, প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি দেশটির জনগণের জন্য তাঁর দায়িত্ব পালনের সময় একটি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন।

রেড ক্রিসেন্টের ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, পাহাড়ের ওপর হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ লেজ দেখা যাচ্ছে। উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে প্রাণের কোনো চিহ্ন নেই।

তবে এখন পর্যন্ত তাদের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেনি ইরান সরকার। ইরানের এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, রাইসিকে বহনকারী বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারটি পুরোপুরি পুড়ে গেছে।

হেলিকপ্টারটিতে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ান এবং পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর মালেক রহমতি এবং এ প্রদেশে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লা আলি খামেনির মুখপাত্র আয়াতুল্লাহ মোহাম্মদ আলী আলে-হাশেম ছিলেন বলে জানা গেছে।

ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হওয়ার পর এর সন্ধান পেতে বেগ পেতে হয়েছিল উদ্ধারকর্মীদের। কুয়াশাপূর্ণ বৈরী আবহাওয়া ও ঘটনাস্থল দুর্গম এলাকা হওয়ায় উদ্ধার অভিযানে দেরি হচ্ছিল। পরে হেলিকপ্টারটির বিধ্বস্ত হওয়ার অবস্থান শনাক্ত করে উদ্ধারকারী দল। সেখানে বড় ধরনের অনুসন্ধান অভিযান শুরু করে।

দেশটির বার্তা সংস্থা ইরনা জানায়, ৪০ জনের বেশি উদ্ধারকারীর দল এ অভিযানে নামে। অনুসন্ধানী কুকুর এবং ড্রোন দিয়ে দুর্ঘটনাস্থলে তাদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হয়।

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্য ইমেইল

ঘটনাস্থলে কোন প্রাণের চিহ্ন পাওয়া যায়নি

বেঁচে নেই ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত : ১১:৪৫:৪৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪

ইরানে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান এবং আরও কয়েকজন নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির রাষ্ট্রীয় টিভি। প্রেস টিভির বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি। 

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আইআরএনএ- এর সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলগুলোতে ড্রোন থেকে নেওয়া দুর্ঘটনাস্থলের ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে। এতে প্রেসিডেন্ট রাইসির হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ দেখা গেছে।

দেশটির আধা-সরকারি বার্তা সংস্থা মেহর নিউজ বলছে, প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি দেশটির জনগণের জন্য তাঁর দায়িত্ব পালনের সময় একটি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন।

রেড ক্রিসেন্টের ফুটেজে দেখা যাচ্ছে, পাহাড়ের ওপর হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ লেজ দেখা যাচ্ছে। উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে প্রাণের কোনো চিহ্ন নেই।

তবে এখন পর্যন্ত তাদের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেনি ইরান সরকার। ইরানের এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, রাইসিকে বহনকারী বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারটি পুরোপুরি পুড়ে গেছে।

হেলিকপ্টারটিতে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দুল্লাহিয়ান এবং পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর মালেক রহমতি এবং এ প্রদেশে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লা আলি খামেনির মুখপাত্র আয়াতুল্লাহ মোহাম্মদ আলী আলে-হাশেম ছিলেন বলে জানা গেছে।

ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হওয়ার পর এর সন্ধান পেতে বেগ পেতে হয়েছিল উদ্ধারকর্মীদের। কুয়াশাপূর্ণ বৈরী আবহাওয়া ও ঘটনাস্থল দুর্গম এলাকা হওয়ায় উদ্ধার অভিযানে দেরি হচ্ছিল। পরে হেলিকপ্টারটির বিধ্বস্ত হওয়ার অবস্থান শনাক্ত করে উদ্ধারকারী দল। সেখানে বড় ধরনের অনুসন্ধান অভিযান শুরু করে।

দেশটির বার্তা সংস্থা ইরনা জানায়, ৪০ জনের বেশি উদ্ধারকারীর দল এ অভিযানে নামে। অনুসন্ধানী কুকুর এবং ড্রোন দিয়ে দুর্ঘটনাস্থলে তাদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হয়।