ঢাকা , শনিবার, ২২ জুন ২০২৪

বেতন বৃদ্ধির দাবিতে কর্মবিরতিতে স্যামসাংয়ের কর্মীরা

বেতন বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের কর্মীরা। পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে তারা শুক্রবার (৭ জুন) কর্মবিরতি পালন করছেন।

 

শ্রমিকরা কাজে যোগ না দিয়ে সিউলে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। তারা সেখানে বিক্ষোভ করেন। এ সময় শ্রমিকরা ‘শ্রমকে সম্মান করুন’ স্লোগান দেন। এ ছাড়া অনেকে বাড়ি থেকেই কর্মক্ষেত্রে আসেননি। তবে কিছুসংখ্যক কর্মীকে কাজে যোগ দিতে দেখা গেছে।

 

 

ন্যাশনাল স্যামসাং ইলেকট্রনিকস ইউনিয়নের (এনএসইইউ) প্রধান সন উ-মোক জানান, তারা ছয় মাস ধরে বেতন বাড়ানোর দাবিতে প্রচার করে আসছেন। কিন্তু তাতে কাজ না হওয়ায় এ প্রথম কর্মবিরতি পালন করছেন। এতে কতসংখ্যক কর্মী সায় দিয়েছেন তা তিনি নির্দিষ্ট করতে পারেননি।

 

তিনি বলেন, আন্দোলনকারী শ্রমিকদের সঠিক সংখ্যা বলা কঠিন। তবে আমি সকালে কর্মক্ষেত্রে উপস্থিতির হারে স্বাভাবিকের চেয়ে উল্লেখযোগ্য পার্থক্য দেখেছি।

 

 

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে স্যামসাংয়ের সঙ্গে আলোচনা করছে শ্রমিক ইউনিয়নগুলো। কিন্তু তার সমাধান হয়নি। প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে এ বছর ৫ দশমিক ১ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু সঙ্গে বার্ষিক ছুটি বৃদ্ধি এবং কর্মক্ষমতাভিত্তিক বোনাস দাবি করে ইউনিয়ন।

 

স্যামসাংয়ের ২৮ হাজারের বেশি কর্মী এনএসইইউ-এর সঙ্গে জড়িত। যা বিশ্বব্যাপী প্রতিষ্ঠানটির কর্মীর পাঁচ শতাংশ।

 

 

এদিকে স্যামসাং বলছে, শুক্রবারের শ্রমিকদের কর্মবিরতি উৎপাদন ও শিপমেন্টে কোনো প্রভাব পড়েনি। কারণ, কারখানার অনেক মেশিন এআই দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। তবে শ্রমিকদের দাবি নিয়ে আলোচনায় চলছে। এ আলোচনা চলবে।

 

 

তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, বিশ্বব্যাপী স্যামসাংয়ের প্রতিযোগীরা বেশ শক্তিশালী। প্রতিষ্ঠানটি এআই পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে। তাই এ ধরনের আন্দোলন স্যামসাংকে বিপদে ফেলে দিতে পারে।

 

 

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্য ইমেইল

বেতন বৃদ্ধির দাবিতে কর্মবিরতিতে স্যামসাংয়ের কর্মীরা

প্রকাশিত : ০৪:৫৬:৫৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

বেতন বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের কর্মীরা। পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে তারা শুক্রবার (৭ জুন) কর্মবিরতি পালন করছেন।

 

শ্রমিকরা কাজে যোগ না দিয়ে সিউলে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। তারা সেখানে বিক্ষোভ করেন। এ সময় শ্রমিকরা ‘শ্রমকে সম্মান করুন’ স্লোগান দেন। এ ছাড়া অনেকে বাড়ি থেকেই কর্মক্ষেত্রে আসেননি। তবে কিছুসংখ্যক কর্মীকে কাজে যোগ দিতে দেখা গেছে।

 

 

ন্যাশনাল স্যামসাং ইলেকট্রনিকস ইউনিয়নের (এনএসইইউ) প্রধান সন উ-মোক জানান, তারা ছয় মাস ধরে বেতন বাড়ানোর দাবিতে প্রচার করে আসছেন। কিন্তু তাতে কাজ না হওয়ায় এ প্রথম কর্মবিরতি পালন করছেন। এতে কতসংখ্যক কর্মী সায় দিয়েছেন তা তিনি নির্দিষ্ট করতে পারেননি।

 

তিনি বলেন, আন্দোলনকারী শ্রমিকদের সঠিক সংখ্যা বলা কঠিন। তবে আমি সকালে কর্মক্ষেত্রে উপস্থিতির হারে স্বাভাবিকের চেয়ে উল্লেখযোগ্য পার্থক্য দেখেছি।

 

 

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে স্যামসাংয়ের সঙ্গে আলোচনা করছে শ্রমিক ইউনিয়নগুলো। কিন্তু তার সমাধান হয়নি। প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে এ বছর ৫ দশমিক ১ শতাংশ বেতন বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু সঙ্গে বার্ষিক ছুটি বৃদ্ধি এবং কর্মক্ষমতাভিত্তিক বোনাস দাবি করে ইউনিয়ন।

 

স্যামসাংয়ের ২৮ হাজারের বেশি কর্মী এনএসইইউ-এর সঙ্গে জড়িত। যা বিশ্বব্যাপী প্রতিষ্ঠানটির কর্মীর পাঁচ শতাংশ।

 

 

এদিকে স্যামসাং বলছে, শুক্রবারের শ্রমিকদের কর্মবিরতি উৎপাদন ও শিপমেন্টে কোনো প্রভাব পড়েনি। কারণ, কারখানার অনেক মেশিন এআই দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। তবে শ্রমিকদের দাবি নিয়ে আলোচনায় চলছে। এ আলোচনা চলবে।

 

 

তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, বিশ্বব্যাপী স্যামসাংয়ের প্রতিযোগীরা বেশ শক্তিশালী। প্রতিষ্ঠানটি এআই পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে। তাই এ ধরনের আন্দোলন স্যামসাংকে বিপদে ফেলে দিতে পারে।