ঢাকা , সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রে ফের ‘পান্ডা কূটনীতি’ চালু করছে চীন

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসির জাতীয় চিড়িয়াখানায় বিশাল দুটি পান্ডা পাঠাবে চীন। মার্কিন ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন এবং দেশটির কর্মকর্তারা হঠাৎ এই ঘোষণা দিয়েছেন। বিষয়টিকে বিশ্বের দুই পরাশক্তির মধ্যে পান্ডা কূটনীতির নবযুগের সূচনা হিসেবেই দেখছেন বিশ্লেষকরা। খবর আলজাজিরার।

 

বুধবার (২৯ মে) মার্কিন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পান্ডা দুটির নাম বাও লি এবং কিং বাও। এই বছরের শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্রে আসবে পান্ডা দুটি। ১০ বছরের প্রজনন ও গবেষণা চুক্তির অধীনে তাদের আমেরিকায় আনা হবে।

 

 

এক এক্সবার্তায় জিল বাইডেন লিখেছেন, আমাদের জাতীয় চিড়িয়াখানায় আবারও একবার দৈত্যকার পান্ডারা আনন্দদায়ক দুঃসাহসিক কর্মকাণ্ড করবে। তাদের এই কর্মকাণ্ড দেখবে কাছের ও দূরের শিশুরা। বিষয়টি ভেবে আমরা খুব উত্তেজিত।

 

সাম্প্রতিক বছরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে মতবিরোধ চরম উঠেছে। দিন যত সামনে গড়িয়েছে এই উত্তেজনার পারদ তত বেড়েছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কমেছে পান্ডার সংখ্যাও। মাত্র ছয় মাস আগেও তিনটি পান্ডা মার্কিন জাতীয় চিড়িয়াখানা থেকে নিয়ে গেছে চীন। এখন আমেরিকায় মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা পান্ডা রয়েছে।

 

 

তবে নভেম্বরে ক্যালিফোর্নিয়ায় এক শীর্ষ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে দেখা করার পর চীনা ও আমেরিকান জনগণের মধ্যে বন্ধুত্বের দূত হিসেবে নতুন করে পান্ডা পাঠানোর কথা জানিয়েছিলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এরপরই আমেরিকায় নতুন পান্ডার আগমনের খবর সামনে এলো। ইতিমধ্যে হোয়াইট হাউস বলেছে, নতুন পান্ডা পেলে তারা খুশিই হবে।

 

 

১৯৭২ সালে চীনের পান্ডা কূটনীতির সূচনা হয়। সে সময় তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের কমিউনিস্ট দেশটি সফরের পর উপহার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রথমবারের মতো এই প্রাণীটি পাঠিয়েছিল বেইজিং। তবে গত কয়েক বছর দুই দেশের সম্পর্কে উত্তেজনা দেখা দিলে বেশ কয়েকটি পান্ডা নিজ দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যায় চীন।

 

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্য ইমেইল

যুক্তরাষ্ট্রে ফের ‘পান্ডা কূটনীতি’ চালু করছে চীন

প্রকাশিত : ১১:৪৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসির জাতীয় চিড়িয়াখানায় বিশাল দুটি পান্ডা পাঠাবে চীন। মার্কিন ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন এবং দেশটির কর্মকর্তারা হঠাৎ এই ঘোষণা দিয়েছেন। বিষয়টিকে বিশ্বের দুই পরাশক্তির মধ্যে পান্ডা কূটনীতির নবযুগের সূচনা হিসেবেই দেখছেন বিশ্লেষকরা। খবর আলজাজিরার।

 

বুধবার (২৯ মে) মার্কিন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পান্ডা দুটির নাম বাও লি এবং কিং বাও। এই বছরের শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্রে আসবে পান্ডা দুটি। ১০ বছরের প্রজনন ও গবেষণা চুক্তির অধীনে তাদের আমেরিকায় আনা হবে।

 

 

এক এক্সবার্তায় জিল বাইডেন লিখেছেন, আমাদের জাতীয় চিড়িয়াখানায় আবারও একবার দৈত্যকার পান্ডারা আনন্দদায়ক দুঃসাহসিক কর্মকাণ্ড করবে। তাদের এই কর্মকাণ্ড দেখবে কাছের ও দূরের শিশুরা। বিষয়টি ভেবে আমরা খুব উত্তেজিত।

 

সাম্প্রতিক বছরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে মতবিরোধ চরম উঠেছে। দিন যত সামনে গড়িয়েছে এই উত্তেজনার পারদ তত বেড়েছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কমেছে পান্ডার সংখ্যাও। মাত্র ছয় মাস আগেও তিনটি পান্ডা মার্কিন জাতীয় চিড়িয়াখানা থেকে নিয়ে গেছে চীন। এখন আমেরিকায় মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা পান্ডা রয়েছে।

 

 

তবে নভেম্বরে ক্যালিফোর্নিয়ায় এক শীর্ষ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে দেখা করার পর চীনা ও আমেরিকান জনগণের মধ্যে বন্ধুত্বের দূত হিসেবে নতুন করে পান্ডা পাঠানোর কথা জানিয়েছিলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। এরপরই আমেরিকায় নতুন পান্ডার আগমনের খবর সামনে এলো। ইতিমধ্যে হোয়াইট হাউস বলেছে, নতুন পান্ডা পেলে তারা খুশিই হবে।

 

 

১৯৭২ সালে চীনের পান্ডা কূটনীতির সূচনা হয়। সে সময় তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনের কমিউনিস্ট দেশটি সফরের পর উপহার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে প্রথমবারের মতো এই প্রাণীটি পাঠিয়েছিল বেইজিং। তবে গত কয়েক বছর দুই দেশের সম্পর্কে উত্তেজনা দেখা দিলে বেশ কয়েকটি পান্ডা নিজ দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যায় চীন।