ঢাকা , সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪

নাটকীয় ম্যাচে ১ রানে স্বপ্নভঙ্গ নেপালের

Oplus_131072

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকাকে প্রায় হারিয়ে দিয়েছিল নেপাল। প্রায় বলতেই হচ্ছে কারণ প্রোটিয়াদের বিপক্ষে নেপালের হারের ব্যবধানটা মাত্র এক রানের। এতে সুপার এইটে খেলার স্বপ্ন, স্বপ্নই রয়ে গেল এশিয়ার দেশটির।

 

শেষ আটে খেলতে হলে এ ম্যাচে জয় দরকার ছিল নেপালের। সেভাবে শুরুটা করেছিল তারা। আগে ব্যাট করা দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৭ উইকেটে ১১৫ রানে বেঁধে ফেলে তাদের বোলাররা। তবে ৭ উইকেটে ১১৪ রানে থামে নেপালের ইনিংস। ১ রানের হারে হৃদয়ের সঙ্গে সঙ্গে স্বপ্নভঙ্গ হয় হিমালয়ের কন্যাখ্যাত দেশটির।

 

 

কিংসটাউনের আর্ন্স ভ্যাল গ্রাউন্ডে ১১৬ রানের টার্গেটে শুরুটা ভালো হয় নেপালের। লো স্কোরিং ম্যাচে ওপেনিং জুটিতে ৩৫ রান তোলেন দুই নেপালিজ ওপেনার কুশল ও আসিফ শেখ। কুশল ১৩ রানে আউট হন। আসিফ শেখের ৪২ রানে জয়ের খুব কাছে পৌঁছে যায় নেপাল।

 

 

শেষ ১২ বলে এশিয়ার দেশটির দরকার ছিল ১৬ রান। এর পর শুরু হয় যত নাটকীয়তা। আনরিখ নর্কিয়ার করা ১৯তম ওভারে এক উইকেট হারিয়ে ৮ রান তুলে তারা। ফলে শেষ ৬ বলে দরকার ছিল ৮ রানের। ওটনেইল বার্টমানের করা শেষ ওভারের প্রথম দুই বলে কোনো রান নিতে পারেননি গুলশান ঝা।

 

 

তবে তৃতীয় বলে বাউন্ডারি হাঁকান তিনি। ফলে সমীকরণ দাঁড়ায় ৩ বলে ৪ রান। চতুর্থ বল থেকে আসে দুই রান। তবে পঞ্চম বলে আসেনি কোনো রান। ফলে শেষ বলে জয়ের জন্য দরকার ছিল ২ রান।

 

তবে শেষ বলটি গুলশান ঝা ব্যাটে লাগাতে পারেননি। ম্যাচ টাই করার জন্য দৌড়ে রান নেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু রান আউট হয়ে যান গুলশান ঝা। এতে এক রানে ম্যাচ হেরে যায় নেপাল।

 

এর আগে টস হেরে কঠিন উইকেট ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি দক্ষিণ আফ্রিকার। এ ম্যাচেও ব্যর্থ তাদের টপ অর্ডার। তবে ব্যতিক্রম ছিলেন ওপেনার রিজা হেনড্রিকস। ৪৯ বলে ৪৩ রান করে আউট হন তিনি।

 

শেষ দিকে ট্রিস্টান স্টাবস ১৮ বলে ২৬ রানে অপরাজিত থাকলে ১১৫ রানে থামে প্রোটিয়াদের ইনিংস। ভিসা জটিলতা কাটিয়ে খেলতে আসা সন্দ্বীপ লামিচানে ছিলেন উইকেটহীন। তবে ৪ ওভারে দেন মাত্র ১৮ রান। তবে আরেক লেগ স্পিনার কুশল ভুরতেল ১৯ রানে নেন ৪ উইকেট। পেসার দীপেন্দ্র সিং ২১ রানে শিকার করেন ৩ উইকেট।

 

 

এই হারে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যায় নেপালের। ৩ ম্যাচে ১ পয়েন্ট ডি-গ্রুপের টেবিলের চতুর্থতে রয়েছে তারা। শেষ ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ। চার ম্যাচের সবগুলোতে জয় পাওয়া দক্ষিণ আফ্রিকার পয়েন্ট ৮।

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্য ইমেইল

নাটকীয় ম্যাচে ১ রানে স্বপ্নভঙ্গ নেপালের

প্রকাশিত : ১১:১২:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকাকে প্রায় হারিয়ে দিয়েছিল নেপাল। প্রায় বলতেই হচ্ছে কারণ প্রোটিয়াদের বিপক্ষে নেপালের হারের ব্যবধানটা মাত্র এক রানের। এতে সুপার এইটে খেলার স্বপ্ন, স্বপ্নই রয়ে গেল এশিয়ার দেশটির।

 

শেষ আটে খেলতে হলে এ ম্যাচে জয় দরকার ছিল নেপালের। সেভাবে শুরুটা করেছিল তারা। আগে ব্যাট করা দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৭ উইকেটে ১১৫ রানে বেঁধে ফেলে তাদের বোলাররা। তবে ৭ উইকেটে ১১৪ রানে থামে নেপালের ইনিংস। ১ রানের হারে হৃদয়ের সঙ্গে সঙ্গে স্বপ্নভঙ্গ হয় হিমালয়ের কন্যাখ্যাত দেশটির।

 

 

কিংসটাউনের আর্ন্স ভ্যাল গ্রাউন্ডে ১১৬ রানের টার্গেটে শুরুটা ভালো হয় নেপালের। লো স্কোরিং ম্যাচে ওপেনিং জুটিতে ৩৫ রান তোলেন দুই নেপালিজ ওপেনার কুশল ও আসিফ শেখ। কুশল ১৩ রানে আউট হন। আসিফ শেখের ৪২ রানে জয়ের খুব কাছে পৌঁছে যায় নেপাল।

 

 

শেষ ১২ বলে এশিয়ার দেশটির দরকার ছিল ১৬ রান। এর পর শুরু হয় যত নাটকীয়তা। আনরিখ নর্কিয়ার করা ১৯তম ওভারে এক উইকেট হারিয়ে ৮ রান তুলে তারা। ফলে শেষ ৬ বলে দরকার ছিল ৮ রানের। ওটনেইল বার্টমানের করা শেষ ওভারের প্রথম দুই বলে কোনো রান নিতে পারেননি গুলশান ঝা।

 

 

তবে তৃতীয় বলে বাউন্ডারি হাঁকান তিনি। ফলে সমীকরণ দাঁড়ায় ৩ বলে ৪ রান। চতুর্থ বল থেকে আসে দুই রান। তবে পঞ্চম বলে আসেনি কোনো রান। ফলে শেষ বলে জয়ের জন্য দরকার ছিল ২ রান।

 

তবে শেষ বলটি গুলশান ঝা ব্যাটে লাগাতে পারেননি। ম্যাচ টাই করার জন্য দৌড়ে রান নেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু রান আউট হয়ে যান গুলশান ঝা। এতে এক রানে ম্যাচ হেরে যায় নেপাল।

 

এর আগে টস হেরে কঠিন উইকেট ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি দক্ষিণ আফ্রিকার। এ ম্যাচেও ব্যর্থ তাদের টপ অর্ডার। তবে ব্যতিক্রম ছিলেন ওপেনার রিজা হেনড্রিকস। ৪৯ বলে ৪৩ রান করে আউট হন তিনি।

 

শেষ দিকে ট্রিস্টান স্টাবস ১৮ বলে ২৬ রানে অপরাজিত থাকলে ১১৫ রানে থামে প্রোটিয়াদের ইনিংস। ভিসা জটিলতা কাটিয়ে খেলতে আসা সন্দ্বীপ লামিচানে ছিলেন উইকেটহীন। তবে ৪ ওভারে দেন মাত্র ১৮ রান। তবে আরেক লেগ স্পিনার কুশল ভুরতেল ১৯ রানে নেন ৪ উইকেট। পেসার দীপেন্দ্র সিং ২১ রানে শিকার করেন ৩ উইকেট।

 

 

এই হারে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যায় নেপালের। ৩ ম্যাচে ১ পয়েন্ট ডি-গ্রুপের টেবিলের চতুর্থতে রয়েছে তারা। শেষ ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ। চার ম্যাচের সবগুলোতে জয় পাওয়া দক্ষিণ আফ্রিকার পয়েন্ট ৮।