ঢাকা , সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪

প্রীতি ম্যাচে দাপুটে জয়ের আনন্দে কোপায় আর্জেন্টিনা

Oplus_131072

কয়েকদিন পরেই মাঠে গড়াবে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলীয় শ্রেষ্ঠত্বের আসর কোপা আমেরিকা কাপ। এর আগে জয় দিয়ে নিজেদের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষ করেছে আর্জেন্টিনা।

 

আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে লিওনেল মেসির ম্যাজিকে গুয়েতেমালাকে ৪-১ গোলে হারায় কোপা আমেরিকার বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আর জয়ের স্বস্তি নিয়ে কোপায় খেলতে নামবেন লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

 

 

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের ১০৮ নম্বরে থাকা মধ্য আমেরিকার দেশটির বিপক্ষে মূল একাদশে ফেরেন মেসি। তবে ছিলেন না আগের ম্যাচে ইকুয়েডরের বিপক্ষে গোল করা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।

 

৪-৩-৩-এর পরিবর্তে ৪-৪-২ ফরমেশনে একাদশ সাজান আর্জেন্টিনা কোচ। আক্রমণে লিওনেল মেসির সঙ্গে ছিলেন লাউতারো মার্তিনেজ।

 

 

গুয়েতেমালার বিপক্ষে আগে দুই ম্যাচে শতভাগ জয়ের রেকর্ড লা আলবিসেলেস্তাদের। এ ম্যাচেও সেই রেকর্ড ধরে রাখল আর্জেন্টাইনরা। তবে ম্যাচের শুরুতে নিজেদের ভুলে পিছিয়ে পড়েছিল আর্জেন্টিনা।

 

 

মাঠের বা-প্রান্তে ফাউল থেকে ফ্রি-কিকে গুয়েতেমালার সান্তিস আর্জেন্টিনার ডি বক্সে থাকা রুবিনকে বল দেন। দূরের পোস্টে তার ফ্লিক শট, ডিফেন্ডার লিসান্দ্রো মার্তিনেজের পা লেগে গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজের পাশ দিয়ে বল চলে যায় নিজেদের পোস্টে। আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ে আর্জেন্টিনা।

 

তবে সমতায় ফিরতে খুব বেশি সময় নেয়নি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ডিফেন্ডার নিকোলাস সামায়োয়া ব্যাক পাসে বল দেন গুয়েতেমালার গোলকিপার নিকোলস হ্যাগেনকে। তিনি মিডফিল্ডে দাঁড়িয়ে থাকা ক্যাসেলানোসকে পাস দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু তা সরাসরি চলে যায় মেসির কাছে। ১০ গজ বাইরে থেকে অনেকটা খালি পোস্টে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

 

৩৯ মিনিটে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। মেসির কাছ থেকে বল পেয়ে প্রতিপক্ষে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন কার্বোনি। সেখানে আর্জেন্টাইন এই মিডফিল্ডারকে ফাউল করেন সামায়োয়া। রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দিলে, সফল স্পট কিকে দলকে এগিয়ে নেন লাউতারো মার্তিনেজ।

 

মেসি যে আর্জেন্টিনার সকল আক্রমণের প্রাণ তা আবারও প্রমাণ হয় ম্যাচের ৬৬ মিনিটে। তার নিঁখুত পাস থেকে দুর্দান্ত গোলে আর্জেন্টিনাকে ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে নেন লাউতারো। ম্যাচটি এটি তার দ্বিতীয় গোল।

 

শুরুর একাদশে না থাকলেও ম্যাচের ৬২ মিনিটে বদলি হিসেবে মাঠে নামেন ডি মারিয়া। মাঠে নামার ১৫ মিনিটের মধ্যে নিজের ‘ইমপ্যাক্ট’ দেখান এই উইঙ্গার। তার দুর্দান্ত অ্যাসিস্টে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন মেসি।

 

 

কোপা আমেরিকার শুরুর আগ মুহূর্তে দলের পারফরম্যান্সে পুরোপুরি খুশি আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি। ২০ জুন কানাডার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের শিরোপা ধরে রাখার মিশন। মহাদেশীয় এই টুর্নামেন্টে নামার আগে দাপুটে এ জয় নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাস বাড়াবে আর্জেন্টাইনদের।

 

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্য ইমেইল

প্রীতি ম্যাচে দাপুটে জয়ের আনন্দে কোপায় আর্জেন্টিনা

প্রকাশিত : ১১:২২:১৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪

কয়েকদিন পরেই মাঠে গড়াবে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলীয় শ্রেষ্ঠত্বের আসর কোপা আমেরিকা কাপ। এর আগে জয় দিয়ে নিজেদের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষ করেছে আর্জেন্টিনা।

 

আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে লিওনেল মেসির ম্যাজিকে গুয়েতেমালাকে ৪-১ গোলে হারায় কোপা আমেরিকার বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আর জয়ের স্বস্তি নিয়ে কোপায় খেলতে নামবেন লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

 

 

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের ১০৮ নম্বরে থাকা মধ্য আমেরিকার দেশটির বিপক্ষে মূল একাদশে ফেরেন মেসি। তবে ছিলেন না আগের ম্যাচে ইকুয়েডরের বিপক্ষে গোল করা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।

 

৪-৩-৩-এর পরিবর্তে ৪-৪-২ ফরমেশনে একাদশ সাজান আর্জেন্টিনা কোচ। আক্রমণে লিওনেল মেসির সঙ্গে ছিলেন লাউতারো মার্তিনেজ।

 

 

গুয়েতেমালার বিপক্ষে আগে দুই ম্যাচে শতভাগ জয়ের রেকর্ড লা আলবিসেলেস্তাদের। এ ম্যাচেও সেই রেকর্ড ধরে রাখল আর্জেন্টাইনরা। তবে ম্যাচের শুরুতে নিজেদের ভুলে পিছিয়ে পড়েছিল আর্জেন্টিনা।

 

 

মাঠের বা-প্রান্তে ফাউল থেকে ফ্রি-কিকে গুয়েতেমালার সান্তিস আর্জেন্টিনার ডি বক্সে থাকা রুবিনকে বল দেন। দূরের পোস্টে তার ফ্লিক শট, ডিফেন্ডার লিসান্দ্রো মার্তিনেজের পা লেগে গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজের পাশ দিয়ে বল চলে যায় নিজেদের পোস্টে। আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ে আর্জেন্টিনা।

 

তবে সমতায় ফিরতে খুব বেশি সময় নেয়নি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ডিফেন্ডার নিকোলাস সামায়োয়া ব্যাক পাসে বল দেন গুয়েতেমালার গোলকিপার নিকোলস হ্যাগেনকে। তিনি মিডফিল্ডে দাঁড়িয়ে থাকা ক্যাসেলানোসকে পাস দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু তা সরাসরি চলে যায় মেসির কাছে। ১০ গজ বাইরে থেকে অনেকটা খালি পোস্টে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

 

৩৯ মিনিটে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। মেসির কাছ থেকে বল পেয়ে প্রতিপক্ষে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন কার্বোনি। সেখানে আর্জেন্টাইন এই মিডফিল্ডারকে ফাউল করেন সামায়োয়া। রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দিলে, সফল স্পট কিকে দলকে এগিয়ে নেন লাউতারো মার্তিনেজ।

 

মেসি যে আর্জেন্টিনার সকল আক্রমণের প্রাণ তা আবারও প্রমাণ হয় ম্যাচের ৬৬ মিনিটে। তার নিঁখুত পাস থেকে দুর্দান্ত গোলে আর্জেন্টিনাকে ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে নেন লাউতারো। ম্যাচটি এটি তার দ্বিতীয় গোল।

 

শুরুর একাদশে না থাকলেও ম্যাচের ৬২ মিনিটে বদলি হিসেবে মাঠে নামেন ডি মারিয়া। মাঠে নামার ১৫ মিনিটের মধ্যে নিজের ‘ইমপ্যাক্ট’ দেখান এই উইঙ্গার। তার দুর্দান্ত অ্যাসিস্টে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন মেসি।

 

 

কোপা আমেরিকার শুরুর আগ মুহূর্তে দলের পারফরম্যান্সে পুরোপুরি খুশি আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি। ২০ জুন কানাডার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের শিরোপা ধরে রাখার মিশন। মহাদেশীয় এই টুর্নামেন্টে নামার আগে দাপুটে এ জয় নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাস বাড়াবে আর্জেন্টাইনদের।